পটিয়ায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে কৃষক নিহত

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার কচুয়াই ইউনিয়নের দক্ষিণ শ্রীমাই পাহাড়ে পাহাড়ী সন্ত্রাসীদের গুলিতে এক কৃষক নিহত হয়েছে। তিনি প্রতিদিনের মতো সকালে কৃষি কাজ করতে যান। সেখানে একদল পাহাড়ি সন্ত্রাসী তার কোমরে পায়ে গুলি করে তাকে হত্যা করে।

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) সকাল ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে চট্টগ্রামের পটিয়ার কচুয়াই ইউনিয়নের দক্ষিণ শ্রীমাই পাহাড়ি এলাকায়। জীবনের শেষ মুহূর্তে ছেলের মাথায় হাত বুলিয়ে দোয়া করে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন আনু মিয়া।

জানা যায়, পটিয়া উপজেলার কচুয়াই ইউনিয়নের দক্ষিণ শ্রীমাই পাহাড়ি এলাকায় প্রতিদিনের মতো সকালে কৃষি কাজ করতে যান কৃষক আনু মিয়া (৪৫)। এ সময় একদল পাহাড়ি সন্ত্রাসীদের দেখতে পান। এ সময় আনু মিয়ার সঙ্গে তাদের বাকবিতডন্ড হয়। এ অবস্থায় সন্ত্রাসীরা তাকে পরপর দুটি গুলি করে পালিয়ে যায়। নিহত আনু মিয়ার কোমরের পেছনে একটি ও বাম পায়ের উরুতে আরেকটি গুলি লাগে। সকাল সাড়ে আটটার দিকে নিহতের ছোট ছেলে জাসেম ভাত নিয়ে যাওয়ার সময় খবর পান তার বাবাকে গুলি করে জমিতে ফেলে রেখে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে গেছে।

নিহতের ছোট ছেলে জাসেম জানান, এ অবস্থায় ভাতের মোছা রেখে সে তার বাবার কাছে গিয়ে দেখতে পান গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তার বাবা পড়ে আছে। এসময় তার মাথায় হাত বুলিয়ে তার মাকে দেখে রাখতে বলেন। তখন মুখোশ পরিহিত একজনকে পাহাড়ের দিকে চলে যেতে দেখে জাসেম।

এ অবস্থায় গুলিবিদ্ধ আনু মিয়াকে উদ্ধার করে প্রথমে পটিয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়।

পটিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিক রহমান বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে পাহাড়ি সন্ত্রাসীদের গুলিতে কৃষক আনু মিয়া নিহত হয়েছেন। আমরা বিষয়টি গুরুত্বসহকারে খতিয়ে দেখছি। লাশটি ময়না তদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।’

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পটিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিক রহমান, পরিদর্শক ওসি রেজাউল করিম মজুমদার ও পরিদর্শক ওসি (তদন্ত) রাশেদুল ইসলাম ও উপপরিদর্শক বেলাল আকন্দ।

নিহত আনু মিয়া এক ছেলে ও ২ মেয়ের বাবা বলে জানিয়েছেন তার স্বজনরা।