চট্টগ্রাম আন্ত:জিলা মাস মালিক সমিতির সংবাদ সম্মেলন

সার্ভিস চার্জের নামে চাঁদাবাজি বন্ধ এবং ডিরেক্টর অব লেবার, চট্টগ্রাম কর্তৃক বাতিলকৃত আন্ত:জিলা বাস মালিক সমিতি-রেজিঃ নং-১৬২৬ এর অসাংবিধানিক কার্যকরী কমিটির কর্মকান্ড বন্ধের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে চট্টগ্রাম আন্ত:জিলা বাস মালিক সমিতি।

মঙ্গলবার (৫জুলাই) দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আয়োজিত উক্ত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন চট্টগ্রাম আন্ত:জিলা বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বদরুল হুদা মুরাদ।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী কর্তৃক পরিবহন সেক্টরে চাঁদাবাজির বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরনে কঠিন নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু এক শ্রেণির সুবিধাভোগীরা সে নির্দেশনার তোয়াক্কাা না করে আন্ত:জিলার বিভিন্ন রুটে নিয়মিত চলাচলরত ৮৫০-৯শ গাড়ী থেকে দৈনিক ২শ ১০টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৬শ পর্যন্ত বাধ্যতামূলক চাঁদা আদায় করে থাকে। এখানে উল্লেখ্য যে, কেন্দ্রীয় সংগঠন থেকে লাইনে নিয়োজিত স্টাফ খরচ সহ আনুষাঙ্গিক ব্যয় নির্বাহে ত্রিশ টাকা আদায়ের নির্দেশনা থাকলেও তা অমান্য করে কয়েকগুন বেশী টাকা আদায় করা হচ্ছে। তাছাড়া প্রায় ৩শ গাড়ীর মালিক হতে প্রভিশনাল ভর্তি রশিদের মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নিয়ে গাড়ীর মালিককে ভোটার তালিকাভুক্ত না করার অভিযোগ রয়েছে। এ সমস্ত টাকা কারা কিভাবে আদায় করে তার একটি সুনির্দিষ্ট তদন্ত করার জন্য জোর দাবি জানানো হয়।

তিনি লিখিত বক্তব্যে আরো জানান, ১৯৬০ ইং সালে প্রতিষ্ঠিত এই সংগঠনে শ্রম দপ্তর কর্তৃক ১৯৯২সনের ২০ সেপ্টেম্বর তারিখে নিবন্ধিত পাশ করা একটি গঠনতন্ত্র রয়েছে। গঠনতন্ত্রে বর্ণিত এক প্রতিষ্ঠান এক ভোটের বিধানসহ অনেক অনুচ্ছেদ কুচক্রিমহলটি অন্যায়ভাবে দীর্ঘকাল সাধারণ বাস মালিকদের কাছ থেকে গোপন রেখেছেন। ২০১১ সনের ৩০মে তারিখের সাধারণ সভার সিদ্ধান্ত মতে নির্ধারিত গঠনতন্ত্র ছাপানো হলেও সেটিতে রেজিঃ নং ১৬২৬ না লিখে কুটকৌশল করে কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় ফেডারেশনের অন্তর্ভূক্ত দেখিয়ে সাধারণ বাস মালিকদের সাথে প্রতারণা করছে একটি মহল। নিয়মানুযায়ী প্রতি তিন বছর পর পর নির্বাচন করার বিধান থাকলেও তা অমান্য করে সাবজেক্ট কমিটির মাধ্যমে দীর্ঘ (৩৬ বছর) তিন যুগেরও বেশী সময় ধরে সম্পূর্ণ অনৈতিক ও গঠনতন্ত্র পরিপন্থীভাবে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ বর্তমান নেতারা আয়ত্বে রেখেছে।

লিখিত বক্তব্যে দাবি করা হয়, চট্টগ্রাম আন্ত:জিলা বাস মালিক সমিতিতে প্রকৃত অর্থে সাধারণ বাস মালিকদের স্বার্থরক্ষা করার পাশাপাশি প্রশাসনিক আদেশ নির্দেশ যথাযথ প্রতিপালন করা এবং চলাচলরত বাস হতে কোনরূপ অবৈধ টাকা আদায় না করা আমাদের অন্যতম লক্ষ্য। এছাড়া আমরা একটি যানজটমুক্ত ও পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে সরকারের পাশে থাকতে চাই। বিশেষ করে, চট্টগ্রামে একটি কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল নির্মাণ করার দাবীকে সামনে নিয়ে আমাদের আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম আন্ত:জিলা বাস মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম রসুল বাবুল, আমজাদ আনসারী, নুরুল ইসলাম নুরু, মাহবুবুল হক, হাজী রফিক, মো. ইউনুস, মো. হাফিজ ও মোহাম্মদ জাফর প্রমূখ।

আরও পড়ুন