বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আড়াই লাখ গাড়ি তুলে নিচ্ছে হোন্ডা

জাপানের গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হোন্ডা উৎপাদন ত্রুটির কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বাজার থেকে প্রায় ২ লাখ ৫০ হাজার গাড়ি তুলে নিচ্ছে । হোন্ডার পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানর সহযোগী গাড়ি নির্মাতা ব্র্যান্ড আকুরার গাড়িও তুলে নেওয়া হচ্ছে বলে। খবরে – মার্কিন সম্প্রচারমাধ্যম সিএনএন নিউজ।

মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) এক বিবৃতিতে হোন্ডা ও সহযোগী প্রতিষ্ঠান আকুরা জানায়, উৎপাদনে ত্রুটি থাকার কারণেই গাড়িগুলো তুলে নেওয়া হচ্ছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে যে, মূলত উৎপাদন ত্রুটির কারণে যেকোনো সময় এসব গাড়ির ইঞ্জিন ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

আকুরা হোন্ডারই একটি সহযোগী প্রতিষ্ঠান। যারা হোন্ডার প্রযুক্তি ব্যবহার করেই গাড়ি উৎপাদন করে থাকে। তবে হোন্ডার এই ব্র্যান্ডটি মূলত উত্তর আমেরিকার কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, মেক্সিকো, পানামা ও কুয়েতে গাড়ির ব্যবসা করে থাকে।

তাদের নির্মিতি গাড়ির ইঞ্জিনের কানেকটিং রড বেয়ারিংয়ে কিছুটা ত্রুটি আছে। যার কারণে গাড়ি চলার সময় ইঞ্জিন যেকোনো সময় বন্ধ হয়ে যেতে পারে, আগুন ধরে যেতে পারে বা ইঞ্জিন ক্র্যাশ করতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হাইওয়ে ট্রাফিক সিস্টেমের কাছে পাঠানো এক নোটিশে এমনটাই জানিয়েছে কোম্পানীটি।

তুলে নেওয়া গাড়ি গুলোর মধ্যে ২০১৫-২০২০ মডেলের আকুরা টিএলএক্স, ২০১৬-২০২০ মডেলের আকুরা এমডিএক্স এবং ২০১৮-২০১৯ মডেলের হোন্ডা ওডিসিস, ২০১৬, ২০১৮ ও ২০১৯ মডেলের পাইলট ও রিজলাইন। এ ছাড়া ২০১৭ ও ২০১৯ সালে উৎপাদিত কিছু গাড়িও রয়েছে।

এই নিয়ে ১৪ তম বারের মতো বাজার থেকে গাড়ি তুলে নিচ্ছে হোন্ডা। পরিমাণের দিক থেকে এর সংখ্যায় পঞ্চম বৃহত্তম। সব মিলিয়ে ২০২৩ সালে এখন পর্যন্ত ৩০ লাখেরও বেশি গাড়ি বাজার থেকে তুলে নিয়েছে হোন্ডা। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, যেসব ব্যক্তি হোন্ডা ও আকুরার নির্দিষ্ট মডেলের গাড়িগুলো কিনেছেন তাদের জানুয়ারির প্রথম দিকেই বিষয়টি জানানো হবে। পরে সংশ্লিষ্ট ডিলার ত্রুটি তদন্ত করবেন এবং ত্রুটি পাওয়া সাপেক্ষে বিনা মূল্যে ইঞ্জিন মেরামত বা প্রতিস্থাপন করে দেওয়া হবে।