ইমরান খান ও তাঁর স্ত্রী বুশরা বিবিকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়ার একদিন পরপরই অন্য ১টি মামলায় ইমরান খান এবং তাঁর স্ত্রী বুশরা বিবিকে ১৪ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত।

বুধবার (৩১ জানুয়ারী) রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা কারাগারে স্থাপিত দেশটির দুর্নীতি দমন বিষয়ক বিশেষ আদালত তাঁকে এই কারাদণ্ড দেয়। তোশাখানা মামলায় তাদের এই কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

পাকিস্তানের ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিবিলিটি ব্যুরোর আদালতের বিচারক মোহাম্মদ বশির এই মামলার রায় দেন। রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা কারাগারে (যেখানে ইমরান খান বন্দী) স্থাপিত এক বিশেষ আদালতে এই রায় দেওয়া হয়।

আদালতের রায়ে বলা হয়, এই রায় কার্যকর হওয়ার পর আগামী ১০ বছর কোনো রাষ্ট্রীয় পদে অধিষ্ঠিত হতে পারবেন না তাঁরা। একই সঙ্গে, তাদের দুজনকে প্রায় ৭৯ কোটি (৭৮ কোটি ৭০ লাখ) পাকিস্তানি রুপি করে জরিমানাও করা হয়েছে। মামলার রায়ের সময় বুশরা বিবি উপস্থিত ছিলেন না।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া পাকিস্তানের গণপরিষদ নির্বাচনের ঠিক ৮ দিন আগে এই রায় দেওয়া হলো।

এর আগে, গতকাল মঙ্গলবার রাষ্ট্রীয় গোপন নথি ফাঁস বা সাইফার মামলায় পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও তাঁর সরকারের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশিকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) এই রায়কে ‘ভুয়া’ বলে আখ্যা দিয়েছে। এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিলের কথাও জানিয়েছে পিটিআই।

আরও পড়ুন