পেকুয়ায় সিএনজি গতিরোধ করে টাকা ও মোবাইল ছিনতাই!


১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১১:৫৯ : অপরাহ্ণ

কক্সবাজারের পেকুয়ায় সিএনজি গতিরোধ করে দুই লক্ষাধিক টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার (১২সেপ্টেম্বর) ভোর ৬টায় এবিসি অঞ্চলিক মহা সড়কের বারবাকিয়া কাদিমাকাটা রাস্তার মাথা এলাকায়।

জানা যায়, ভোরে একটি সিএনজি নিয়ে ৩/৪ জন লোক ওই এলাকার ছাগল খাইয়্যা ব্রীজের পাশে অবস্থান নেয়। কিছুক্ষণ পর পেকুয়ায় দিক থেকে আসা অপর একটি যাত্রীবাহী সিএনজিকে লক্ষ করে আরও একটি সিএনজি দ্রুত গতিতে এসে যাত্রীবাহী সিএনজিটি থামায়। এতে সিএনজিতে থাকা এক যাত্রীর কাছ থেকে ছিনতাইকারীরা টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। এক পর্যায়ে ওই যাত্রীর চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে ছিনতাইকারীরা সিএনজি করে পালিয়ে পেকুয়ার দিকে চলে যায়।

ছিনতাইয়ের শিকার সাইফুল ইসলাম পেকুয়া সদর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের বাইম্যাখালী এলাকার কামাল হোসেনের ছেলে বলে জানা গেছে।

ছিনতাইয়ের শিকার সাইফুল বলেন, চট্টগ্রাম -থ সিরিয়ালের আফিয়া-সোরাইয়া এক্সঃ নামের একটি সিএনজি করে দুই লক্ষ বিশ হাজার টাকা নিয়ে ভোর বেলায় চট্টগ্রাম শহরে ভাইয়ের কাছে যাচ্ছিলাম। যাওয়ার পথে কাদিমাকাটা এলাকায় পৌঁছালে প্রতিমধ্যে আগে থেকে উৎপেতে থাকা সংঘবদ্ধ ছিনতাইয়ের দল আমার গাড়ি গতিরোধ করে। এরা আমার কাছ থেকে টাকা ও মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়। আমি এদেরকে ছিনি। ছিনতাইকারীদের মধ্যে একজন পেকুয়া সদর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মাতবর পাড়া এলাকার মোঃ শাফির ছেলে আলমগীর, শেকেরখিল্লাঘোনা এলাকার মোঃ জাফর আহমদের ছেলে সিএনজি চালক সাইফুল ইসলাম ও মিয়া পাড়া এলাকার সিএনজি চালক বাপ্পিসহ ৫/৬ জন ছিল। তিনি আরও জানান, ছিনতাইকারীরা আমার ০১৮২৫২২৩৭৯১, ০১৮৫৬০৩৬৫৮০ ও ০১৭৫৫০৩৯৯৮২ নং ব্যবহৃত দুটি মোবাইল সেট নিয়ে যায়। তবে সিএনজি চালক সাইফুলের যোগসাজসে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ছিনতাইয়ের শিকার সাইফুল।

বদরুল, মোকিম, জসিমসহ অনেকে জানান আলমগীর চৌমহনী সিএনজি স্টশনের লাইনম্যান দাবী করে বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। তাঁর বিরুদ্ধে পেকুয়া থানায় অভিযোগ রয়েছে। এধরনের ছিনতাইয়ের ঘটনা আরও ঘটেছে। চট্টগ্রাম -থ সিরিয়ালের আফিয়া-সোরাইয়া এক্সঃ নামের সিএনজি গাড়ি জব্দ রয়েছে।

এ ব্যাপারে সিএনজি ও অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ বারেক এই প্রতিবেদককে বলেন, চোরি ও ছিনতাইয়ের সাথে জড়িত থাকে এমন কোন লাইনম্যান আমাদের নেই। তবে বিষয়টি নিয়ে যুবলীগ নেতা মোঃ আজম আমাকে জানিয়েছে । সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে সাংগঠনিক নীতিমালা অনুসারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এবিষয়ে পেকুয়া থানার ওসি (তদন্ত) কানন সরকারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ছিনতাইয়ের ঘটনার সম্পর্কে কেউ অবগত করেনি। ভিকটিমের পক্ষে লিখিত অভিযোগ পেলে জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email

ট্যাগ :

আরো সংবাদ


বাংলা English
%d bloggers like this: