উচ্ছেদের শঙ্কায় দিশেহারা লোহাগাড়ার প্রতিবন্ধী নুরুন নাহার


১৫ অক্টোবর, ২০২১ ৬:৪২ : অপরাহ্ণ

প্রতিপক্ষের নানা অত্যাচারে বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ আতংকে ভোগছেন নুরুন নাহার বেগম(৩৫) নামে এক প্রতিবন্ধী। তিনি লোহাগাড়ার পূর্ব কলাউজানের আদারচর এলাকার লতিয়ার পাড়ার আহমদ হোসেনের মেয়ে। দীর্ঘদিন যাবত প্রতিপক্ষ তার চাচা আবুল হোসেন ও চার ছেলে মিলে তাকে বিভিন্ন মামলা, হামলা করে হয়রানি করে আসছেন বলেন তিনি জানান।

সরেজমিনে জানা গেছে, জন্ম থেকে নুরুন নাহার বেগমের দুই পা অচল। হাতে ভর করে চলাফেরা করেন। প্রতিবন্ধী হওয়ায় তার বাবা ও ভাইয়েরা তাকে পুরনো পৈতৃক বসতভিটা তার নামে লিখে দেন। বাবা ও ভাইয়েরা একই ইউনিয়নের আদারচরের পার্শ্ববর্তী তিতারচর এলাকায় নতুন বাড়ি করে বসবাস করছেন। বিগত ২৩ বছর পূর্বে উপজেলার আমিরাবাদের মাষ্টারহাট এলাকার নাছির উদ্দিনের সাথে তার বিয়ে হয়। সেই থেকে পৈতৃক সূত্রে প্রাপ্ত বসতভিটায় একচালা টিনের ঘর করে স্বামীকে নিয়ে বসবাস করেন। দুই সন্তানের জন্ম হলেও কিছুদিন পর তারা মারা যায়।

সম্প্রতি নিঃসন্তান এই দম্পতিকে পৈতৃক স‚ত্রে প্রাপ্ত বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ করতে তার চাচা আবুল হোসেন ও তার চার ছেলে উঠেপড়ে লেগেছেন। তারা কিছুদিন পূর্বে তার রান্নাঘর ভেঙ্গে দেয়। জোর করে বসতভিটার গাছপালা ও বাঁশ কেটে নিয়ে যায়। দিনেরাতে ঘরের চালে ঢিল, ইট ছুঁড়ে মারে ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছে। এব্যাপারে আত্মীয়স্বজন ও প্রতিবেশী কেউ তাকে সহযোগিতা করলে তাদেরও মারধর, গালাগাল, ভয়ভীতি দেখানোসহ মিথ্যা মামলা মোকদ্দমা দিয়ে হয়রানী করে। তার ভাই জিয়াউর রহমান, আবদুল আজিজ, জেঠাত ভাই ফরিদুল আলম, ভাবী ইছমত আরা নুরুন নাহারকে সহযোগিতা করায় তাদেরসহ ১৩ জনকে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করে। প্রতিপক্ষ প্রভাবশালী হওয়ায় বিভিন্ন মহলের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না। এখন প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা দিয়ে নুরুন নাহারকে মামলা-মোকদ্দমার খরচ চালাতে হয়।

এবিষয়ে ভুক্তভোগী প্রতিবন্ধী নুরুন নাহার বেগম বলেন, প্রতিপক্ষের শারীরিক ও মানসিক অত্যাচারে আমি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত। তাদের হুমকি, মামলা ও হামলায় প্রতিনিয়ত উচ্ছেদ আতংক ও নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। তারা রাস্তাঘাটে আমার স্বামীকে দেখলে মারধর ও অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে। প্রতিপক্ষ প্রভাবশালী হওয়ায় বিভিন্ন মহলকে অবহিত করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না বলে তিনি জানান।

অভিযুক্ত আবুল হোসেন বলেন, প্রতিবন্ধী নুরুন নাহার আমার ভাইজি হয়। বিরোধীয় সম্পত্তি আমার দুই বোন আলীবি ও সুফীর পৈতৃক সূত্রে প্রাপ্ত সম্পত্তি। ওই সম্পত্তি দীর্ঘদিন আমার দখলে ছিল। আমাকে না জানিয়ে সম্প্রতি তারা আমার দুই ভাইপো ফরিদুল আলম ও আবদুল আজিজকে বিক্রি করে দেয়। এখন তারা সবাই মিলে আমাকে উক্ত সম্পত্তি থেকে উচ্ছেদ করে নুরুন নাহার বেগমকে ঘর বেঁধে দিয়েছে। তারা আমাকে ও আমার ছেলেদের মামলা হামলা করে হয়রানি করছে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল ওয়াহেদ বলেন, ভুক্তভোগী প্রতিবন্ধী গ্রাম আদালতে এবিষয়ে অভিযোগ করেছিল। কিন্তু প্রতিপক্ষের কারণে তাদের বিরোধ মিটানো সম্ভব হয়নি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান হাবিব জিতু বলেন, প্রতিবন্ধী নুরুন নাহার বেগমকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা ও নিরাপত্তার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

ট্যাগ :

আরো সংবাদ


বাংলা English
%d bloggers like this: